Just another WordPress site

নিষিদ্ধ নারীদের গ্রাম, এখানে পুরুষ প্রবেশ নিষিদ্ধ

Umoja village Men are not allowed here

0 398

সমাজের নারী ও পুরুষকে সমান মর্যাদা দেওয়ার লড়াই আজও অব্যাহত রয়েছে। আমরা যতই বলি না কেন নারী পুরুষের সমান অধিকার। তবুও আমরা সাধারণত নিষিদ্ধ নারীদের একটু অন্য চোখেই দেখি। তবে অনেক সময় অনুভূতি হয় যে আজও পুরুষ শাসিত চিন্তাভাবনা সমাজে বিদ্যমান।

তবে আপনি কি জানেন? যে পৃথিবীতে এমন একটি গ্রামও রয়েছে যেখানে কেবল নারীরা শাসন করেন এবং পুরুষদের প্রবেশ নিষিদ্ধ । দেশটির নাম কেনিয়ার, উমোজা নামের একটি গ্রাম। গ্রামটি কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবি(Nairobi) নিকটে। ১৯৯০ সাল থেকে ১৮ জন সাম্বুরু নারী নিয়ে এই গ্রামটির সূত্রপাত হয় । এটি এমন একটি গ্রাম যেখানে শুধু মাত্র নারীদের বাস এবং তাদেরই শাষন চলে। এই গ্রামের বিশেষত্ব হ’ল এখানে কোনও পুরুষ প্রবেশ করতে পারে না।দেশটির নাম কেনিয়ার, উমোজা নামের একটি গ্রাম।

উমোজা গ্রামে পুরুষদের নিষিদ্ধ করা হয়েছে

উমোজা গ্রামের (Umoja village)এক বাসিন্দা রোজালিনা নামের এক মহিলা ঘরের কাজ করেন, এবং মুক্তোর গহনা তৈরি করেন। রোজালিনা যখন উমোজা গ্রামে এসেছিল তখন তার বয়স মাত্র ৩ বছর। এখানে ৫০ জন নারী তাদের বাচ্চাদের নিয়ে এক সাথে খড়ের ঝোপে বাস করে। এখানকার গ্রামের নারীদের লক্ষ্য দারিদ্রতা এবং নিষিদ্ধ নারীদের জীবনধারণের উন্নতি ও তাদের পরিবার কর্তৃক নারীদের ত্যাগ করার সমস্যা মোকাবেলা করা।” এই গ্রামে পুরুষদের নিষিদ্ধ করা হয়েছে। কোনও পুরুষ যদি এখানে প্রবেশ করেন, তবে স্থানীয় পুলিশকে জানানো হয়।

ব্রিটিশ সৈন্য দ্বার ধর্ষিতা

১৯৯০ সাল থেকে উমোজা গ্রামের সূত্রপাত হয় । এই সাম্বুরু মহিলারা ব্রিটিশ সৈন্য দ্বার ধর্ষিতা হয়েছিল এবং তার পরে থেকে সম্প্রদায়ের মানুষ, নিষিদ্ধ নারী হিসাবে, ঘৃণার চোখে দেখতে শুরু করেছিল। প্রায় ১,৪০০ সাম্বুরু মহিলা(Samburu women) ধর্ষণের শিকার হয়েছে এবং পরিবর্তী কালে তাদের স্বামী এবং তাদের পরিবারের প্রতি সম্প্রদায়ের মানুষ অসম্মানজনক উক্তি করেছিল। তারপর এই নারীদের বাড়ি থেকে বের করে দোয়া হয়।এমন অনেক মহিলা আছেন যারা স্বামীর মৃত্যুর পরে এখানে আশ্রয় নিয়েছেন।

বহিস্কিত নারীদের উমোজা গ্রামে স্বাগত

এই নিষিদ্ধ নারীরা একটি ফাঁকা জমিতে বসবাস করতে শুরু করে এবং উমোজা গ্রামের নামকরণ করেছিলেন, যা পরবর্তীতে ধীরে ধীরে এই গ্রামটি সমাজের চোখে নিষিদ্ধ নারীদের আশ্রয়ে রূপান্তরিত হয়। এখানে, যে সকল নারীদের তাদের বাড়ি থেকে বহিষ্কার করা হয় তাদের স্বাগত জানানো হয়। বিবাহিত জীবনে নারী বিয়োগের শিকার নারীরা এবং ধর্ষিতা ও অন্যান্য কারণ বশতঃ লাঞ্চিত মহিলারা এখানে আসেন। এমন অনেক মহিলা আছেন যারা স্বামীর মৃত্যুর পরে এখানে আশ্রয় নিয়েছেন।

উমোজা গ্রামের বাসিন্দা সমস্ত নারী সাম্বুরু সম্প্রদায়ের । এই সমাজ পুরুষতান্ত্রিক এবং বহুবিবাহ হয়ে থাকে। সমস্ত বয়সের সমাজে লাঞ্চিত মহিলারা এখানে এসে বাস করার অনুমতি রয়েছে। এখানে বসবাসরত নারীরা ৯৮ বছর বয়সী থেকে ৬ মাস বয়সী কিশোরী পর্যন্ত রয়েছে। অনেক গর্ভবতী মহিলা এখানে ও বাস করেন।

নিষিদ্ধ নারীদের গ্রাম
এইতিহ্যবাহী সাম্বুরু কারুকাজ

পুরুষদের, উমোজা গ্রাম দেখার অনুমতি রয়েছে তবে গ্রামের মধ্যে রাত্রিযাপন করার অনুমতি নেই। উমোজার শিশুদের মধ্যে বেড়ে ওঠা পুরুষরা গ্রামে রাত্রিযাপন করতে পারে। ২০০৫ সালে, উমোজে ৩০ জন মহিলা এবং ৫০ জন শিশু বাস করত।

গ্রামের  অর্থনীতি

উমোজার বাসিন্দারা এইতিহ্যবাহী সাম্বুরু কারুকাজ করে থাকে যা তারা উমোজা ওয়াসো মহিলা সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে বিক্রি করে কারুশিল্পগুলির মধ্যে রঙিন পুঁতির মালা তৈরি করে। মহিলারা পর্যটকদের জন্য একটি ক্যাম্পসাইটও চালান এবং প্রতিটি নারী তাদের আয়ের দশ শতাংশ বিদ্যালয় এবং অন্যান্য প্রয়োজনের জন্য, কর হিসাবে গ্রামে দান করে।

উমোজা গ্রামে মহিলারা সম্পূর্ণ স্বাধীনতায় সুখে বসবাস করেন। এখানে তাদের কোনও কাজের অনুমতি নিতে হবে না। উমোজা গ্রামের নারীরা বর্তমানে, এখানকার জমির মালিক।

Leave A Reply

Your email address will not be published.